অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে জোকোভিচের রেকর্ড শিরোপা

0

এফএনএস স্পোর্টস: রাফায়েল নাদালের বিপক্ষে দ্বিতীয় চ্যাম্পিয়নশিপ পয়েন্ট পেতেই রড লেভার অ্যারেনায় হাঁটু গেড়ে বসে নোভাক জোকোভিচ দুই হাত মুষ্টিবদ্ধ করলেন আকাশের দিকে, তার দৃষ্টিও।  মেলবোর্নে রেকর্ড সপ্তমবার অস্ট্রেলিয়ান ওপেন চ্যাম্পিয়ন হওয়ার উদযাপনে আরও ছিল বিজয়ের গর্জন। বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্লামে সবচেয়ে বেশিবার শিরোপা জয়ের কীর্তি গড়লেন তিনি রয় এমারসন ও রজার ফেদেরারকে পেছনে ফেলে।

নাদালকে কোনও সুযোগই দেননি জোকোভিচ। দুই ঘণ্টা ৪ মিনিটের লড়াইয়ে স্প্যানিশ তারকাকে ৬-৩, ৬-২, ৬-৩ গেমে হারান তিনি। ৫টি ব্রেক পয়েন্ট জিতেছেন শীর্ষ বাছাই। তার দাপুটে পারফরম্যান্সে ২৮টি আনফোর্সড এরর করেছেন নাদাল।

ট্রফি হাতে নিয়ে জোকোভিচ ফিরে গেলেন অতীতে, ‘গত ১২ মাসের কথা আমি গভীরভাবে ভাবার চেষ্টা করছি। রাফার মতো ঠিক ১২ মাস আগে আমারও অস্ত্রোপচার হয়েছিল। আর আজ এখন সবার সামনে দাঁড়িয়ে, এখানে চ্যাম্পিয়ন হওয়া এবং চার গ্র্যান্ড স্লামের তিনটি জেতা অসাধারণ ব্যাপার। আমি কিছু বলার ভাষা খুঁজে পাচ্ছি না।’

তিন বছরে দুইবার মেলবোর্নে ফাইনাল হারা নাদাল বলেছেন, ‘এই দুই সপ্তাহ ছিল খুব আবেগের। আজ রাতে আমি আমার সেরাটা খেলতে না পারলেও বেশ ভালো খেলেছি। আমি লড়াই চালিয়ে যাব। ভালো খেলোয়াড় হতে কঠোর পরিশ্রম করে যাব।’

উইম্বলডন ও ইউএস ওপেনের পর অস্ট্রেলিয়ান ওপেন- এনিয়ে টানা তৃতীয় গ্র্যান্ড স্লাম জিতলেন জোকোভিচ। এটি ছিল সার্ব তারকার ক্যারিয়ারের ১৫তম গ্র্যান্ড স্লাম। সর্বকালের শীর্ষ গ্র্যান্ড স্লাম জয়ীর তালিকায় সাম্প্রাসকে পেছনে ফেলে এখন তিন নম্বরে তিনি। তার উপরে কেবল ফেদেরার (২০) ও নাদাল (১৭)।

নাদালের সঙ্গে সবশেষ ১৬ ম্যাচের ১৩টি জিতলেন জোকোভিচ। ২০১৩ সালের ইউএস ওপেন ফাইনালের পর হার্ড কোর্টে স্প্যানিশ এই প্রতিপক্ষের কাছে কখনও হারেননি তিনি। সব মিলিয়ে ৫৩ বারের দেখায় তিনি এগিয়ে ২৮-২৫ ব্যবধানে।

মেলবোর্নে সেমিফাইনাল খেললেই হাতে শিরোপা, এই রেকর্ড অব্যাহত রাখলেন জোকোভিচ। আর ফাইনালে চতুর্থবার হারের তেতো স্বাদ পেলেন নাদাল। তাতে ২০০৯ সালের অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জয়ী উন্মুক্ত যুগে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে সব গ্র্যান্ড স্লাম অন্তত দুইবার করে জিততে ব্যর্থ হলেন। বিবিসি

Share.

Leave A Reply