কুমিল্লায় ছুরিকাঘাতে কিশোর হত্যা

0

এনএনবি : কুমিল্লায় এক কিশোরকে ছুরি মেরে হত্যা করা হয়েছে, যে চলতি বছর একটি স্কুল থেকে এসএসসি পরীক্ষায় পাস করে কলেজে ভর্তির অপেক্ষায় ছিল।

সোমবার রাত ৯টার দিকে শহরের মোগলটুলী এলাকায় কর্ণফুলী পেপার হাউজের সামনে ওই হত্যাকা- ঘটে বলে কোতোয়ালি থানার ওসি আবু সালাম মিয়া জানান।

নিহত ওই কিশোর কুমিল্লা মডার্ন হাই স্কুল থেকে এ বছর এসএসসি পাস করে। তাদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার মহিচাইল এলাকায়। পরিবারের সঙ্গে কুমিল্লা শহরের ঝাউতলা এলাকার এক বাসায় থাকত সে।

ওসি আবু সালাম মিয়া বলেন, “ওই কিশোরের লাশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। কারা তাকে হত্যা করেছে তা জানতে পুলিশ কাজ করছে।”

ঝাউতলা এলাকার বাসিন্দা সাইদুল ইসলাম জানান, রাত সাড়ে ৮টার দিকে ওই কিশোরকে তিনি রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। তাকে প্রথমে কুমিল্লা সদর হাসপাতালে এবং পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ওই কিশোরকে মৃত ঘোষণা করে।

এই হত্যাকা-ের পেছনে কারা রয়েছে- সে বিষয়ে পুলিশ কিছু না বললেও সম্প্রতি কুমিল্লা শহরে বেপরোয়া হয়ে ওঠা কয়েকটি কিশোর ‘গ্যাং’ এর নাম মানুষের মুখে মুখে ঘুরছে।

এর আগে গত ২১ এপ্রিল রাতে ‘তুই’ সম্বোধন নিয়ে তর্কাতর্কির জেরে কুমিল্লা মডার্ন স্কুলের অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্র তার সহপাঠীদের ছুরিকাঘাতে নিহত হয়।

ওই ঘটনার পর পুলিশ হত্যাকা-ে অংশ নেওয়া তিন কিশোরকে আটক করে, তাদের জবানবন্দিতে বেরিয়ে আসে ভয়ঙ্কর সব তথ্য।

তাদের বক্তব্য থেকে পুলিশ জানতে পারে, শহরের বিভিন্ন এলাকায় বেপরোয়া কিশোর তরুণদের অন্তত দশটি গ্যাং সক্রিয় রয়েছে। ‘ঈগল’, ‘র‌্যাগ’- এরকম নামের এসব গ্যাংয়ের সদস্যরা নিয়মিত অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে চলাফেরা করে।

ওই হত্যাকা-র পর একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশ ও গোয়েন্দা পুলিশ শহরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন গ্যাংয়ের ৩০ জনকে আটক করে। শহরের এসবি প্লাজার তিনটি দোকান থেকে অন্তত ৭০০ ছোরা ও চাপাতি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, আটক ওই কিশোরেরা কুমিল্লা শহরের বিভিন্ন স্কুলের ছাত্র। তাদের বেশির ভাগই সপ্তম বা অষ্টম শ্রেণিতে পড়ে। অভিভাবকদের ডেকে পরিস্থিতি সম্পর্কে অবহিত করে মুচলেকা রেখে আটক ওই কিশোরদের পরে ছেড়ে দেওয়া হয়।

Share.

Leave A Reply