ত্রিপোলিতে সেনা-বিদ্রোহী সংঘর্ষে নিহত অন্তত ২১

0

এফএনএস ডেস্ক: জাতিসংঘ সমর্থিত লিবিয়ার সরকার জানিয়েছে, রাজধানী ত্রিপোলির কাছে বিদ্রোহীদের সঙ্গে সংঘর্ষে অন্তত ২১ জন নিহত ও অপর ২৭ জন আহত হয়েছে। ত্রিপোলি দখলে জেনারেল খালিফা হাফতারের বাহিনী অভিযান শুরু করলে সরকারি সেনাদের সঙ্গে এই সংঘর্ষ হয়। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ফায়েজ আল-সিরাজ অভিযোগ করেছেন, জেনারেল হাফতার তাকে উৎখাতের চেষ্টা করছেন এবং সরকারি সেনারা বিদ্রোহীদের মোকাবিলা করবে। জেনারেল হাফতারের বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, শনিবার নিহতদের মধ্যে রেড ক্রিসেন্টের একজন চিকিৎসক রয়েছেন। এ ছাড়া তাদের ১৪ যোদ্ধা নিহত হয়েছে। এর আগে জাতিসংঘের পক্ষ থেকে দুই ঘণ্টার যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানানো হয়েছিল, যাতে বেসামরিক নাগরিকদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া যায়। কিন্তু সংঘর্ষ অব্যাহত থাকে। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও অবিলম্বে সংঘর্ষ বন্ধ করে আলোচনায় বসার আহ্বান জানিয়েছেন উভয় পক্ষকে। ১৯৬৯ সালে কর্নেল মুয়াম্মার গাদ্দাফির ক্ষমতা দখলের সময় সহায়তা করেছিলেন সাবেক সেনা কর্মকর্তা খলিফা হাফতার। পরে তার সঙ্গে মতবিরোধ হলে যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাসনে চলে যান তিনি। ২০১১ সালে গাদ্দাফিবিরোধী আন্দোলন জোরালো হলে ফিরে আসেন হাফতার। আর বনে যান এক বিদ্রোহী নেতা। গত ডিসেম্বরে লিবিয়ার আন্তর্জাতিক স্বীকৃত প্রধানমন্ত্রী ফয়েজ আল সিরাজের সঙ্গে এক সম্মেলনে দেখা করেন হাফতার। তবে আনুষ্ঠানিক আলোচনায় বসতে অস্বীকার করেন তিনি। গত সপ্তাহে সৌদি আরব সফর করে বাদশাহ সালমান ও যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে আলোচনা করেছেন তিনি। বৃহস্পতিবার রওনা দিয়েই ত্রিপোলির একশ’ কিলোমিটার দক্ষিণের শহর গারিয়ানের নিয়ন্ত্রণ নেয় হাফতারের এলএনএ সদস্যরা। এ ছাড়া ২০১৪ সাল থেকে বন্ধ থাকা রাজধানীর একটি বিমানবন্দরের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার খবরও জানা যাচ্ছে। তবে এই খবর নিয়ে পরস্পরবিরোধী বক্তব্য পাওয়া গেছে।

 

Share.

Leave A Reply