ধর্ষকের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত আটঘরিয়ায়

0

 

আটঘরিয়া প্রতিনিধি : আটঘরিয়ার একদন্ত উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রী (১৩) ধর্ষনের ঘটনায় ধর্ষকের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল মানববন্ধন ও ধর্ষকের কুশপত্তালিকা দাহ করেন বিদ্যালয়ের শিক্ষক, ছাত্র/ছাত্রী ও অভিভাবকবৃন্দ। গতকাল রোববার সকালে উক্ত বিদ্যালয়ের সামনে এই মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। এই দিন সকাল সাড়ে এগারোটার দিকে বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রী শিক্ষক ও অভিভাবকবৃন্দ একদন্ত বাজার এর প্রধান সড়ক থেকে নরজান খানকা শরীফ পর্যন্ত রাস্তার দুই ধারে দাঁড়িয়ে ধর্ষক আকাশের ফাঁসির দাবিতে প্রায় ঘন্টা ব্যাপী এই মানববন্ধন বিক্ষোভ মিছিল ও কুশপত্তালিকা দাহ করা হয়। উক্ত বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ঐশিতা, লাজুকা, উম্মে হাবিবা, অনিকা বলেন, আমরা সবাই এই নিযার্তন কারির কঠোর শাস্তি ও ফাঁসি চাই। যাতে এধরনের ঘটনায় আর কোনো মেয়েকে শিকার না হতে হয়।

আমাদের বান্ধবীকে আবার আমাদের মাঝে ফিরে পেতে চাই। ভিকটিমের বাবা আসলাম হোসেন বলেন, ঘটনার দিন মামলা করে একদন্ত বাজারে আসার পার লম্পট ধর্ষক আকাশ ৪/৬জন মুখোশ ধারীকে নিয়ে আমাকে অস্ত্রের মুখে মামলা না করতে হুমকি দেয়। এবং আমাকে মেরে ফেলারও হুমকি দেয় তারা। এবিষয়ে ওসি তদন্ত নাজমূল হককে অবগত করা হয়। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান বলেন, ধর্ষকের দৃষ্টিান্তমুলক শাস্তি হওয়া দরকার। সে এলাকায় বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত। তার কঠোর শাস্তির দাবি করেন তিনি। মানববন্ধনে বক্তব্য দেন ডেঙ্গারগ্রাম ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ,একই কলেজের প্রভাষক আবুল কালাম আজাদ,একদন্ত উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান,বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য আব্দুল লতিফ সহ স্থানীয় কয়েকজন। এলাকাবাসী জানান, ধর্ষক আকাশ দীর্ঘ দিন ধরে মাদকসহ বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত রয়েছে। কিন্তু এই ধর্ষক আকাশ এলাকায় প্রকাশ্যে মহড়া দিয়ে ঘুরে বেড়ালেও প্রশাসক তাকে গ্রেপ্তার করছে না। বিষয়টি এলাকার সচেতন মানুষের মাঝে প্রশ্নবৃদ্ধ বলে মনে করছেন তারা।

একদন্ত ইউপি চেয়ারম্যান ইসমাইল হোসেন সরদার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, লম্পট আকাশ এর বিরুদ্ধে এর আগেও এধরণের কয়েকটি অভিযোগ রয়েছে। এঘটনার দৃষ্টান্তমূলক বিচার চান তিনি।

এব্যাপারে আটঘরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি রকিবুল ইসলাম জানান, ধর্ষিতার পিতা বাদী হয়ে গত বুধবার বিকেলে আটঘরিয়া থানায় একটি মামলা করেছে। ধর্ষককে গ্রেপ্তারের সাঁড়াশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। উল্লেখ্য, উপজেলার একদন্ত উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী(১৩) ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে পাওয়া গেছে। গত সোমবার (১০জুন) এই ঘটনা ঘটলেও স্থানীয় প্রভাবশালীদের চাপে ধামাচাপা দিতে গিয়ে বুধবার ঘটনাটি ফাঁস হয়ে যায়। একদন্ত উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী শিক্ষক আরিফুল ইসলামের কোচিং সেন্টারে পাইভেট পড়তে যায় অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রী। প্রাইভেট শেষে বাড়ী ফেরার সময়ে নরজান গ্রামের আব্দুল্লাহের ছেলে লম্পট আকাশ (২২) তাকে জোরপূর্বক অদুরে একটি পাট ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে।

Share.

Leave A Reply