নাবিল-মুক্তারের দুর্দান্ত বোলিংয়ে রূপগঞ্জের জয়

0

এফএনএস স্পোর্টস: নাবিল সামাদ ও মুক্তার আলির দুর্দান্ত বোলিং গড়ে দিল জয়ের পথ। সেই পথ ধরে অনায়াসেই দলকে কাক্সিক্ষত ঠিকানায় পৌঁছে দিলেন ব্যাটসম্যানরা। শেখ জামালকে গুঁড়িয়ে রূপগঞ্জ পেল আরও একটি জয়।

লিগ শুরুর আগে টপ ফেভারিটদের কাতারে ছিল না লেজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। সেই দলই জিতে চলেছে একের পর এক ম্যাচ। এবার তাদের জয়রথে পিষ্ট শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব। রূপগঞ্জ জিতেছে ৮ উইকেটে।

বিকেএসপির উইকেট বরাবরই রান প্রসবা হলেও বৃহস্পতিবারের এই ম্যাচে চিত্র ভিন্ন। শেখ জামাল গুটিয়ে যায় কেবল ১৪১ রানেই। ১০ ওভারে ৩০ রানে ৩ উইকেট নিয়েছেন নাবিল, ৩৩ রানে ৩টি মুক্তার।

রূপগঞ্জের রান তাড়ায় উইকেটের প্রতিকূলতার প্রমাণ নেই। জিতে গেছে তারা ২৮.৪ ওভারেই।

এই নিয়ে ৯ ম্যাচের ৮টিই জিতল রূপগঞ্জ। প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্টির চ্যাম্পিয়ন শেখ জামাল এই লিগে ৯ ম্যাচে জিতেছে কেবল ৪টি।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা শেখ জামাল প্রথম ৫ ওভার নির্বিঘেœ কাটাতে পেরেছিল। কিন্তু নাবিলকে সামলাতে পারেনি তারা। অভিজ্ঞ বাঁহাতি স্পিনার ফিরিয়ে দেন ওপেনার ইমতিয়াজ হোসেনকে।

নাবিল পরে ফেরান ভারতীয় ব্যাটসম্যান অনুষ্টুপ মজুমদারকেও। লিগ জুড়ে ধুঁকতে থাকা নাসির হোসেন রানে ফিরতে পারেননি এদিনও।

ওপেনার ফারদিন হাসান আঁকড়ে ছিলেন এক প্রান্ত। ৫২ বলে ২৮ রান করা ব্যাটসম্যানকে থামান মুক্তার। ওই ওভারে তিনি ফিরিয়ে দেন বিপজ্জনক জিয়াউর রহমানকেও। ৭৬ রানে ৫ উইকেট হারায় শেখ জামাল।

অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান ও অলরাউন্ডার তানবীর হায়দার চেষ্টা করেছেন ঘুরে দাঁড়াতে। কিন্তু বেশিরভাগ ম্যাচের মতো সোহান আবারও আউট হয়ে গেছেন থিতু হয়ে। ৩৩ বলে করেছেন ২৫।

এরপর দলকে যা একটু টেনেছেন কেবল তানবীর। ৬৭ বল খেলে করেছেন ৩৫ রান। লোয়ার অর্ডারে দাঁড়াতে পারেননি কেউ। শেখ জামাল করতে পারেনি দেড়শও।

রান তাড়ায় মেহেদি মারুফকে ১২ রানে হারায় রূপগঞ্জ। তবে জিততে খুব একটা বেগ পেতে হয়নি তাদের। দ্বিতীয় উইকেটে মোহাম্মদ নাঈম ও মুমিনুল হকের জুটি দলকে নিয়ে যায় জয়ের দুয়ারে। দুজনে যোগ করেন ৯৬ রান।

৬৯ বলে ৬৩ রান করে ফেরেন তরুণ ওপেনার নাঈম। ৭১ বলে অপরাজিত ৬০ রানে মুমিনুল ফেরেন দলের জয় সঙ্গে নিয়ে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শেখ জামাল: ৪৩.২ ওভারে ১৪১ (ইমতিয়াজ ১১, ফারদিন ২৮, অনুষ্টুপ ১০, নাসির ২, নুরুল ২৫, জিয়াউর ০, তানবীর ৩৫, ইলিয়াস সানি ৭, এনামুল ৮*, খালেদ ০, সাকিল ০*; শুভাশিস ৯-০-২৮-১, শহিদ ৮-০-২১-১, নাবিল ১০-১-৩০-৩, ধাওয়ান ৬.২-০-২৮-১, মুক্তার ১০-০-৩৩-৩)।

রূপগঞ্জ: ২৮.৪ ওভারে ১৪৫/২ (মারুফ ১২, মোহাম্মদ নাঈম ৬৩, মুমিনুল ৬০*, নাঈম ইসলাম ৮*; খালেদ ৬-০-১৯-০, জিয়াউর ৩-০-১৮-০, এনামুল ৯-০-২৮-১, সাকিল ২-০-১৬-০, নাসির ৩-০-২১-০, ইলিয়াস সানি ৩.৪-১-২১-১, তানবীর ২-০১-৭-০)।

ফল: লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ ৮ উইকেটে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: নাবিল সামাদ01-

Share.

Leave A Reply