শ্রীলঙ্কা হামলার ঘটনায় সন্দেহভাজন দুটি গোষ্ঠীকে নিষিদ্ধ

0

এফএনএস আর্ন্তজাতিক: শ্রীলঙ্কার হোটেল ও গির্জায় আত্মঘাতী বোমা হামলার সঙ্গে জড়িত বলে সন্দেহ করা স্থানীয় দুটি কট্টরপন্থি ইসলামি গোষ্ঠীকে নিষিদ্ধ করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট।

শনিবার এক বিবৃতিতে ন্যাশনাল তাওহীদ জামায়াত (এনটিজে) ও জামাতি মিল্লাথু ইব্রাহিমকে জরুরি ক্ষমতাবলে নিষিদ্ধ করার কথা জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা, খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

এক সপ্তাহ আগে রাজধানী কলম্বোসহ তিনটি শহরে চালানো ওই ভয়াবহ হামলায় ২৫০ জনেরও বেশি লোক নিহত হন।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এর আগে কর্তৃপক্ষ স্বল্প পরিচিত ওই দুটি গোষ্ঠীকে নিষিদ্ধ করার পদক্ষেপ নিতে পারেনি কারণ তাদের বিরুদ্ধে জোরালো প্রমাণ দেখানোর আইনি বাধ্যবাধকতা ছিল।

বোমা হামলার সন্দেহভাজন মূল পরিকল্পনাকারী মোহাম্মদ হাশিম মোহাম্মদ জাহরান এনটিজে অথবা এর একটি দলছুট অংশের নেতৃত্ব দিতো বলে পুলিশের বিশ্বাস। অপরদিকে জামাতি মিল্লাথু ইব্রাহিম আরও কম পরিচিত দল হলেও এর সদস্যরা ওই বোমা হামলায় একটি ভূমিকা পালন করেছিল বলে বিশ্বাস করা হচ্ছে।

ওই হামলাগুলোর দায় স্বীকার করেছে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)। তবে নিজেদের দাবির স্বপক্ষে গোষ্ঠীটি কোনো প্রমাণ দাখিল করেনি।

গত রোববারের বোমা হামলার পর থেকে নিরাপত্তা বাহিনীগুলো ১০০ জনকে আটক করেছে। এদের মধ্যে সিরীয় ও মিশরীয়সহ বিদেশিরাও রয়েছেন।

নিরাপত্তা পরিস্থিতি উন্নয়নের পাশাপাশি তল্লাশি অভিযান চালাতে ভারত মহাসাগরের দ্বীপ দেশটি জুড়ে প্রায় ১০ হাজার সৈন্য মোতায়েন করা হয়েছে।

শুক্রবার রাতে শ্রীলঙ্কার পূর্ব উপকূলের আমপারা জেলার সাইন্থামারুথুর একটি বাড়িতে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানের সময় গোলাগুলির সূত্রপাত হয়। এতে আত্মঘাতী ভেস্ট পরা তিন ব্যক্তি ও ছয়টি শিশুসহ অন্তত ১৫ জন নিহত হয় বলে জানিয়েছেন সামরিক বাহিনীর এক মুখপাত্র।

এখানে গোলাগুলিতে বোমা হামলার প্রধান সন্দেহভাজন জাহরানের স্ত্রী ও মেয়ে আহত হয়েছেন বলে জাহরানের বোন জানিয়েছেন।

নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে এ বন্দুকযুদ্ধেরও দায়ও শনিবার স্বীকার করেছে ইসলামিক স্টেট (আইএস)।

জঙ্গিগোষ্ঠীটির বার্তা সংস্থা আমাক জানিয়েছে, ওই রাতে তাদের তিন সদস্য তাদের আত্মঘাতী ভেস্টের বিস্ফোরণ ঘটানোর আগে কয়েক ঘণ্টা ধরে শ্রীলঙ্কান পুলিশের সঙ্গে বন্দুক লড়াই করছে।

এ হামলার ঘটনায় ১৭ পুলিশ সদস্য নিহত বা আহত হয়েছে বলে গোষ্ঠীটি দাবি করেছে।  তবে নিজেদের দাবির স্বপক্ষে কোনো প্রমাণ দেয়নি তারা।

পৃথক আরেকটি অভিযানে জাহরানের গাড়িচালককে আটক করা হয়েছে বলে এক বিবৃতিতে পুলিশ জানিয়েছে।

ওই একই এলাকার অন্য একটি বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে বোমা তৈরির উপকরণ, বহু জেলিগনাইট স্টিক, কয়েক হাজার বল বিয়ারিংসহ আইএসের একটি পতাকা ও কয়েকটি ইউনিফর্ম পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে সামরিক বাহিনী।

 

Share.

Leave A Reply