স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হওয়ায় শোভা যাত্রা জমায়েত চাটমোহর ও ফরিদপুরে

0

এম এ হাফিজ : স্বল্পোন্নত দেশ থেকে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হওয়ায় পাবনা-৩ এলাকায় আনন্দ শোভাযাত্রা ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে গতকাল দুপুরে আনন্দ শোভাযাত্রা বের হয়ে চাটমোহর, ভাঙ্গুড়া ও ফরিদপুর উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। তিন উপজেলার বিভিন্ন পর্যায়ের আওয়ামীলীগ নেতা ও তাদের সমর্থকরা মোটরসাইকেল নিয়ে শোভাযাত্রায় অংশ নেন। আনন্দ এই শোভাযাত্রায় দলের নেতাকর্মীরা জাতীয় ও দলীয় পতাকা এবং এমপি মকবুল হোসেনের ছবি বহন করে। প্রায় তিনহাজার মোটর সাইকেলের এই শোভাযাত্রা যাত্রাকালে নৌকা নৌকা ধ্বনীতে মুখরিত হয়ে পড়ে চারপাশ। এসময় তাদের বহরে বেশ কয়েকটি বাদ্যযন্ত্র দল সুরের মুর্চ্ছনা তোলে। রাস্তার দুই পাশের সাধারন মানুষ দীর্ঘসময় ধরে যাওয়া এই শোভাযাত্রা দেখে উৎসুক হয়ে।  এই কর্মসূচি উপলক্ষে চাটমোহর ও ফরিদপুর উপজেলায় আলাদা দুটি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশস্থল পরিনত হয় জনসমুদ্রে। বেলা সাড়ে বারোটায় চাটমোহর বালুচর মাঠে জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন পাবনা-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মকবুল হোসেন, চাটমোহর পৌর মেয়র মির্জা রেজাউল করিম দুলালসদস্য সহ নেতৃবন্দ। বক্তারা ‘বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হওয়ায়’ প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানান। সেইসাথে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পাবনা-৩ আসনে নৌকাকে পুনরায় বিজয়ী করতে মানুষের প্রতি আহবান জানান। সেখানে জনসভা শেষে বের হয় মোটর সাইকেল শোভাযাত্রা। এটি চাটমোহর, ভাঙ্গুড়া ও ফরিদপুরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে ফরিদপুরের ওয়াজি উদ্দিন খান মুক্তমঞ্চে গণজমায়েত অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চাটমোহর উপজেলার পার্শ্বডাঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এবং আওয়ামীলীগের প্রবীন নেতা আজহার উদ্দিন। প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন সংসদ সদস্য আলহাজ মকবুল হোসেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পাবনা-৩ এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড হয়েছে। কথা না বলে কাজ করে যেতে হবে। মানুষের জন্য কাজ করে গেলে মানুষই জায়গা করে দেবে। তিনি বলেন ব্যাক্তি মকবুল হোসেন কিছু নয়, জননেত্রী শেখ হাসিনার একজন কর্মী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি মাত্র। বঙ্গবন্ধু কন্যাকে আবারো পাবনা-৩ আসনকে উপহার দেওয়া হবে। এখানে আগামীতে কে প্রার্থী হলো বা হবে এটা দেখার কোন অবকাশ নেই। এটা ঠিক করবেন আওয়ামীলীগের সভানেত্রী। কিন্তু আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় লালিত সংগঠন, দেশের মানুষের আস্থার ঠিকানা আওয়ামীলীগের প্রার্থীকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করে উন্নয়নের ধারাকে নিশ্চিত করতে হবে। নৌকাকে বিজয়ী করার মাধ্যমে মানুষের অর্থনৈতিক উন্নয়নে শামিল থাকতে হবে। দেশ অনেক এগিয়েছে,এই দেশকে আরো বেশি উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিতে হলে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। আসুন সকলে মিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের স্বপ্নকে তথা দেশকে এগিয়ে নেওয়ার কাতারে ঐক্যবদ্ধভাবে শামিল থেকে দেশকে সমৃদ্ধময় করে গড়ে তুলি। আগামী নির্বাচনে নৌকার বিজয়কে নিশ্চিত করার মাধ্যমে আলোকিত বাংলাদেশ গড়ে তুলতে কাজ করে যায়। সমাবেশে স্বাগত বক্তব্য দেন ফরিদপুর পৌরসভার মেয়র খ. ম কামরুজ্জামান মাজেদ। অন্যদের মাঝে ভাঙ্গুড়া পৌরসভার মেয়র গোলাম হাসনাইন রাসেল, চাটমোহর পৌরসভার মেয়র রেজাউল করিম দুলাল, চাটমোহর ইউনিয়নের ১০ জন চেয়ারম্যান, ফরিদপুর এবং ভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের ৬ জন ইউপি চেয়ারম্যান, ৪জন জেলা পরিষদের সদস্য বক্তব্য দেন। কর্মসূচিতে চাটমোহর ভাঙ্গুড়া ও ফরিদপুরের বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সম্পাদকবৃন্দসহ অঙ্গ সংগঠনের সভাপতি সম্পাদকসহ নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

Share.

Leave A Reply