সাঁথিয়ার ধুলাউড়িতে স্বাস্থ্য মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার ভুল বিএনপি আর করবে না

0

স্টাফ রিপোর্টার : আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও স্বাস্থ্য মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, আগামী নির্বাচন ১৯৭০ সালের নির্বাচনের চেয়েও গুরুত্বপুর্ণ। কেননা এই নির্বাচন হবে স্বাধীনতার পক্ষ এবং বিপক্ষ শক্তির মধ্যে। তিনি বলেন, আমরা খালি মাঠে গোল দিতে চাইনা। তাতে মজা নেই। বিএনপিকে নিয়েই নির্বাচন হবে এবং সে নির্বাচনে জনগণের ভোটেই আওয়ামীলীগ বিজয়ী হবে। আজকে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া জেলে তার দলের নেতা কর্মীরা তো একটা পাতাও ছিড়তে পারেনি। কোন জায়গায় নেতাকর্মীদের দেখাও যায় না। মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ২০১৪ সালের নির্বাচনে অংশ না নিয়ে বিএনপি যে ভুল করেছে তারা সেই ভুল আর করবেনা। বেগম খালেদা জিয়া জেলে থাকলেও বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেবে বলে আশা করি। মোহাম্মদ নাসিম নির্বাচনকালীন সরকার বিষয়ে বলেন, মালেশিয়ায় নাজিব সরকার ক্ষমতায় থাকতেই নির্বাচন হয়েছে এবং সেই নির্বাচনে নাজিব হেরেছে। ভারতে কংগ্রেস ক্ষমতায় থেকে নির্বাচন করে হেরেছে। কাজেই আমাদের দেশে আগামী নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী শেখ হাসিনার অধীনেই অনুষ্ঠিত হবে। কিন্ত তাতে বিএনপির এত ভয় কেন? তিনি বলেন, বিএনপির ভয় জনগণের। কেননা জনগণ তাদেরকে লাল কার্ড দেখাবে। জনগণ লাল কার্ড দেখালে আওয়ামীলীগের করার কিছু থাকবেনা। মোহাম্মদ নাসিম আরো বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামীলীগ সরকার যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেছে, দেশে একের পর এক উন্নয়ন কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে।জনগণের আস্থা অর্জন করেছে। এজন্য ভেতরে বাইরে ষরযন্ত্র হচ্ছে। সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে এবং আওয়ামীলীগকে আবারো বিজয়ী করে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে বিভিন্ন আসনে আওয়ামীলীগের পরীক্ষিত নেতারাই মনোনয়ন পাবেন। ভয় পাওয়ার কিছু নেই, দেশের মানুষ জননেত্রী শেখ হাসিনার সাথে রয়েছে। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার স্বার্থে দেশের মানুষ আবারো নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করবে।

গতকাল সোমবার বিকালে সাঁথিয়ার ধুলাউড়ি উনিয়নের বাউশগাড়ি গণহত্যা দিবস উপলক্ষে আওয়ামীলীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। পাবনা-১(সাঁথিয়া-বেড়া)আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট শামসুল হক টুকুর সভাপতিত্বে জনসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন নারায়নগঞ্জের সংসদ সদস্য শামিম ওসমান, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক শামিম মোহাম্মদ আফজাল, রাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল ইসলাম ঠান্ডু। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন পাবনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম লাল, জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি আব্দুল হামিদ মাষ্টার, পাবনা সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোশারোফ হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক এডভোকেট বেলায়েত আলী বিল্লু, সাঁথিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ দেলোয়ার, আওয়ামীলীগ নেতা হাসান আলী, রেজাউল করিম হিরু প্রমুখ। এসময় জেলা প্রশাসক মো: জসিম উদ্দিন, পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির পিপিএম, সাঁথিয়া উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন, বেড়া উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, ফরিদপুর উপজেলা চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান, সাঁথিয়া পৌরসভার মেয়র মিরাজুল ইসলাম প্রামানিক, সদর উপজেলার আওয়ামীলীগ নেতা ও শহীদ বুলবুল কলেজের সাবেক ভিপি শেখ রাসেল আলী মাসুদ, জেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক রকিব হাসান টিপুসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জনসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নারায়নগঞ্জের সংসদ সদস্য শামিম ওসমান বলেন, দেশের মানুষ আর স্বাধীনতা বিরোধীদের দেখতে চায় না। যারা সামনা সামনি বিরোধীতা করে এদের চাইতেও খারাপ যারা দলের মধ্যে থেকে মোনাফেকি করে বেড়ায়। যারা সংস্কারপন্থি হয়ে নেত্রীকে বিপদে ফেলার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিলো তাদেরকে মেনে নেওয়া হবে না। সমুচিত জবাব দেওয়া হবে। সাঁথিয়ার মানুষেরা যেন ফের কলংকে জড়িয়ে না পড়ে তা লক্ষ্য রাখতে তিনি জনগনের কাছে উদাত্ত আহবান জানান। সভায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক শামিম মোহাম্মদ আফজাল বলেন, যারা ইসলামের অপব্যাখ্যা দিয়ে রাজনীতি করছে তাদেরকে বয়কট করতে হবে। এরা দেশের ও জনগনের শত্রু। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত দিয়ে দেশে যতো মসজিদ ও দ্বীনি প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে,তা বিগত কোন সরকারের আমলেই হয়নি বলে উল্লেখ করেন তিনি।

Share.

Leave A Reply