অক্টোবরেই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল

0

এনএনবি : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি আগামী ৩০ অক্টোবরের আগেই সম্পন্ন করে ওই মাসেই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে কমিশন বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

সচিব বলেন, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনসহ বৈঠকে বেশ কিছু এজেন্ডা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সংবিধান অনুযায়ী আগামী ৩০ অক্টোবর থেকে ২০১৯ সালের ১৯ জানুয়ারির মধ্যে সংসদ নির্বাচন সম্পন্ন করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। অক্টোবরের মধ্যেই আমরা সব প্রস্তুতি শেষ করে ওই মাসের শেষেই তফসিল ঘোষণা করবো। এ জন্য ৩০ অক্টোবরের আগেই ৩শ’ সংসদীয় আসনভিত্তিক ভোটার তালিকার সিডি আকারে প্রস্তুতের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, বৈঠকে তৃতীয় লিঙ্গের নাগরিকদের আগামী বছর থেকে ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় হিজড়া হিসেবে অন্তর্ভূক্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। বর্তমানে যেসব হিজড়া ছেলে অথবা মেয়ে পরিচয়ে ভোটার হয়েছেন তারা ওই সময় আবেদন করলে হিজড়া হিসেবে অন্তর্ভূক্ত করা হবে।

তৃতীয় লিঙ্গের নাগরিকরা অনেকদিন থেকে হিজড়া পরিচয়ে অন্তর্ভূক্ত হওয়ার জন্য দাবি জানিয়ে আসছিল। ইতোমধ্যে সরকার তাদের হিজড়া হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে গেজেট প্রকাশ করেছে।

আগামী বছর থেকে ১ মার্চ জাঁকজমকভাবে ‘ভোটার দিবস’ পালন করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, দিবসটি পালন করলে জনসাধারণের মধ্যে ভোটাধিকার, নির্বাচন ও জাতীয় পরিচয়পত্র সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টি হবে। দিবসটি পালনের জন্য মাঠ পর্যায়ে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ জন্য প্রতিটি জেলা উপজেলায় কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

সচিব জানান, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে আর বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটার তালিকা হালনাগাদ করা হবে না। তবে কেউ নিজে এসে ভোটার হতে চাইলে তাকে ভোটার করা হবে। এটি একটি চলমান প্রক্রিয়া।

হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, কমিশন আগামী ৩০ জুলাই অনুষ্ঠেয় রাজশাহী, সিলেট ও বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ইলক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এরমধ্যে বরিশালে ১০টি, সিলেট ও রাজশাহীতে ২টি করে কেন্দ্রে ইভিএম ব্যবহার করা হবে। ওই নির্বাচনে চারদিনের জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েন থাকবে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার খান মো. নুরুল হুদার সভাপতিত্বে বৈঠকে অপর নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, মো. রফিকুল ইসলাম, বেগম কবিতা খানম ও ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরীসহ কমিশন সচিবালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Share.

Leave A Reply