পরিবারে শোকের মাতম চাটমোহরে জীবিকার সন্ধানে সৌদি গিয়ে লাশ হলেন আনোয়ার

0

শামীম হাসান মিলন : সড়ক দূর্ঘটনা রোধে সারাদেশ যখন “নিরাপদ সড়ক চাই” শ্লোগনে উত্তাল-মুখরিত ঠিক তখনই জীবিকার সন্ধানে সৌদি প্রবাসী আনোয়ার হোসেন সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত হয়েছে। স্বপ্ন ভেঙ্গেছে একটি পরিবারের। চাটমোহর উপজেলার কান্দিপাড়া গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে আনোয়ার জীবন-জীবিকার সন্ধানে সৌদি আরবে গিয়ে লাশ হলেন। আনোয়ারের মৃত্যুর সংবাদ সোমবার সকালে উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়নের জগতলা কান্দিপাড়া গ্রামের বাড়িতে পৌঁছালে পরিবারের মধ্যে শুরু হয় শোকের মাতম। বার বার মূর্ছা যাচ্ছেন স্ত্রী আয়েশা খাতুন। অভাব টানাপোড়েন আর সংসারে স্বচ্ছলতা ফেরাতে নানা স্থানে ঋণ করে প্রায় পাঁচ মাস আগে সৌদি আরবে পাড়ি জমিয়েছিলেন আনোয়ার হোসেন মন্ডল (৪০)। সেখানে গিয়ে কাজ না পেয়ে প্রায় চার মাস ঘরে বসে থাকার পর গত জুলাই মাসে একটি চাকরি জোটে তার। আগামী ঈদুল আযহায় বাড়িতে টাকা পাঠানোর কথা ছিল আনোয়ারের। স্ত্রী আয়েশা খাতুনকে বলেছিলেন ছেলে ও মেয়েকে ভাল জামা কাপড় কিনে দিতে এবং বাকি টাকা পাওনাদারদের কিছু টাকা দিতে। এই স্বপ্ন নিয়ে ছেলে-মেয়ে, স্ত্রী দিন গুনছিলো। কিন্তু একটি সড়ক দূর্ঘটনা কেড়ে নিল একটি পরিবারের স্বপ্ন।

নিহতের বাবা আমজাদ হোসেন জানান, চার ছেলের মধ্যে আনোয়ার মেজ। জীবিকার সন্ধানে গত পাঁচ মাস আগে তার চাচাতো ভাই হাবিবুর রহমানের মাধ্যমে সৌদির রাজধানী রিয়াদে পাড়ি জমান। গত একমাস পূর্বে রিয়াদ থেকে ৪২০ কিলোমিটার দূরে হাবুর এলাকায় আল-আলাইদ কোম্পানীতে চাকরি শুরু করেন। গত শুক্রবার বিকেলে কর্মস্থল (রাস্তার পাশে) কাজ করার সময় একটি দ্রুত গতির গাড়ি তাকে চাপা দিলে গুরুতর আহত হন। সঙ্গে সঙ্গে দেশটির পুলিশ তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় এক হাসপাতালে ভর্তি করেন। শনিবার সকালে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান আনোয়ার হোসেন। বর্তমানে তার লাশ সে দেশের পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। লাশ দেশে আনার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সরকারের কাছে সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছে নিহতের পরিবার। পরিবারটিতে চলছে শোকের মাতম। তাদের আৎচিকারে এলাকার পরিবেশ ভারি হয়ে পড়েছে। জ্ঞান হারিয়ে ফেলছে নিহতআনোয়ারের স্ত্রী। দুটি সন্তান নিয়ে এখন তিনি নি:স্ব।

Share.

Leave A Reply