মেসিকে ছাড়াই নতুন আর্জেন্টিনা?

0

এফএনএস স্পোর্টস: ২০২২ বিশ্বকাপে ৩৫ পেরিয়ে যাবেন লিওনেল মেসি। সুনির্দিষ্টভাবে বললে, মেসির বয়স হবে ৩৫ বছর ৫ মাস। পরের বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা দলে কি মেসি থাকবেন? থাকলেও কতটা অপরিহার্য ভূমিকা থাকবে তাঁর? প্রশ্নগুলো উঠছে। কারণ আর্জেন্টিনা পরের বিশ্বকাপ ঘিরে যদি সবকিছু নতুন করে শুরু করতে চায়, তাহলে এখনই সিদ্ধান্ত নিতে হবে, জাতীয় দলে মেসি আর কত দিন? প্রশ্নগুলো ছুটে গিয়েছিল আর্জেন্টিনার নতুন কোচ লিওনেল স্কালোনির কাছে। কিন্তু স্কালোনিও এর পরিষ্কার উত্তর দিতে পারলেন না। প্রথমত তিনি ভারপ্রাপ্ত কোচ। দীর্ঘ মেয়াদে দায়িত্ব দেওয়া হয়নি। ফলে সুদূর পরিকল্পনায় কিছু বলার মতো অবস্থায় তিনি নেই। তবে স্থায়ী কোচ হলেও যে বলতে পারতেন, তা-ও নয়। আর্জেন্টিনার ফুটবলে মেসি এত বড় একটা চরিত্র, তাঁর ভবিষ্যৎ কোনো কোচ ঠিক করে দিতে পারবেন বলে মনে হয় না। মেসির ভবিষ্যৎ ঠিক করতে হবে মেসিকেই। বিশ্বকাপের পর থেকে মেসি মুখে কুলুপ এঁটে বসে আছেন। নিজেও কিছু বলছেন না। মেসির সঙ্গে কথা হয়েছে কি না, এই প্রশ্নের জবাবে স্কালোনি বললেন, ‘আমার মনে হয় না মেসির সঙ্গে কথা বলার এখনই ঠিক সময়। তবে ওকে আমি খুব ভালো করে চিনি। ওর সঙ্গে বলা নিয়ে খুব বেশি ভাবছি না।’ মেসির সিদ্ধান্ত যে মেসি নেবেন, সেটিও পরিষ্কার করে দিলেন কোচ, ‘ওকে আমরা এই বার্তাটা সব সময়ই দেব, ওর প্রাপ্য সম্মান সে সব সময় পাবে। এটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।’ সামনের মাসেই আর্জেন্টিনার দুটি প্রীতি ম্যাচ আছে। এই ম্যাচগুলোতে মেসিকে দলে নেওয়া হবে না বলে একটি গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে। আর তাতেই প্রশ্ন উঠেছে, মেসির ভবিষ্যৎ নিয়ে। তবে স্কালোনি পরিষ্কার করে দিলেন, ‘আমরা এখনো কোনো স্কোয়াডের তালিকা বানাইনি। একজনের নামও না। যখন স্কোয়াড ঘোষণা করতে হবে, তখনই এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেব।’

যদিও হুয়ান সেবাস্তিয়ান ভেরন মনে করেন, মেসিকে ছাড়াই নতুন আর্জেন্টিনা গড়ার এটাই সঠিক সময়। আর্জেন্টিনার সাবেক তারকা অবশ্য বলেছেন, একেবারেই মেসিকে বাদ দিয়ে দেওয়া নয়। সেই শূন্যতা আর্জেন্টিনাকে ভোগাবে। মেসি-নির্ভরতা কমিয়ে ফেলতে হবে ধীরে ধীরে, ‘নতুন একটা দল গড়ার সময় এসে গেছে। অবশ্যই লিও চাইবে জাতীয় দলের হয়ে খেলে যেতে। তবে ওকে দলে সম্পৃক্ত করতে হবে একটু একটু করে। আমি মনে করি, দলের ভিত্তিটা আগে ঠিক করতে হবে। সবচেয়ে বড় কথা হলো, কোনো একজন (মেসি) আমাদের বাঁচিয়ে দেবে এই ভাবনা থেকে বেরিয়ে এসে একটা দল গড়া নিয়ে চিন্তা করতে হবে। এখনকার বাকি দলগুলোর দিকে দেখুন, ওরা কীভাবে বিশ্বকাপে খেলে। দল হয়ে খেলার বিকল্প নেই।’

অনেকে মনে করেন, আর্জেন্টিনার দল হয়ে ওঠার পথে মেসিই বড় বাধা। যত দিন মেসি আছেন, মেসি-নির্ভরতাও থাকবে। আবার এ-ও সত্যি, মেসিকে ছাড়া চেষ্টা করে আর্জেন্টিনা পারেনি। বরং লেজেগোবরে করে ফেলেছে বারবার। গত বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে মেসি ছিলেন আর ছিলেন না এমন ম্যাচের ফলই বলে দিচ্ছে সব। বাছাইপর্বে মেসি ৭ গোল করেছিলেন, আর্জেন্টিনার হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতার নামের পাশে গোল দুটি। শেষ ম্যাচে মেসি হ্যাটট্রিক করে বাঁচিয়ে না দিলে গত বিশ্বকাপেই আর্জেন্টিনাকে দেখা যেত না।

এই যখন অবস্থা, তখন ২০১৯ ও ২০২০ সালের কোপা আমেরিকা সামনে রেখে, ২০১৯ সালে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের লড়াই শুরু হওয়ার পরিকল্পনায় মেসিবিহীন আর্জেন্টিনা চিন্তা করাটাই কঠিন। অন্তত মেসি যত দিন নিজের সেরাটা খেলে যাচ্ছেন, তাঁকে বাদ দিয়ে একাদশ গড়তে পারবে কি আর্জেন্টিনা? নাকি যথেষ্ট হয়েছে, সময় এসেছে দিবালা-ইকার্দিদের নেতৃত্ব নেওয়ার?

Share.

Leave A Reply